বুধবার , সেপ্টেম্বর ২৩ ২০২০
Home / আন্তর্জাতিক / রাখাইনে মিয়ানমারের যুদ্ধপ্রস্তুতি

রাখাইনে মিয়ানমারের যুদ্ধপ্রস্তুতি

বাংলাদেশের সীমান্তসংলগ্ন রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমার সরকারের ব্যাপক সমরসজ্জা করার খবর পাওয়া যাচ্ছে। এর মধ্যে সিটওয়ে নৌ ঘাঁটিতে সাবমেরিন, আন ও সিটওয়ে বিমান ঘাঁটিতে সু৩০, মিগ ২৯ ও জেএস ১৭ থান্ডার্ড ব্লক-২ জঙ্গিবিমান নিয়ে আসার খবর পাওয়া গেছে। এর বাইরে উত্তর কোরিয়া থেকে সংগ্রহ করা ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা মোতায়েন করা হচ্ছে বলেও জানা গেছে। পাঁচ দিন ধরে এ সমরসজ্জা চলছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে বিবিসি খবর প্রকাশ করার পর বিভিন্ন সূত্র থেকে বিস্তারিত তথ্য আসতে শুরু করেছে।

এ দিকে তমব্রু সীমান্তে মিয়ানমার সেনা চৌকি বাড়ানোয় এপারে রোহিঙ্গাদের মধ্যে উদ্বেগ দেখা দিয়েছে। বিজিবিও টহল জোরদার করেছে। কক্সবাজারের বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার তমব্রু সীমান্তের ওপারে হঠাৎ ভারী অস্ত্র ও অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করার খবর আসে। সীমান্তের বাইশফাঁড়ি এলাকাসহ আশপাশে নতুন করে সবুজ রঙের তাঁবু টাঙ্গিয়ে অস্থায়ী চৌকি স্থাপন করেছে সেনারা। মিয়ানমারের এ ধরনের উসকানিমূলক আচরণে শূন্যরেখায় অবস্থানরত হাজার হাজার রোহিঙ্গা এবং সীমান্তের এপারের লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে।

কক্সবাজার-৩৪ বিজিবি অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘আমরা আমাদের টহলসহ কার্যক্রম আরো জোরদার করেছি। আর সীমান্তে সবাইকে সতর্ক অবস্থানে রেখেছি। এ ব্যাপারে নতুন অনুপ্রবেশসহ কোনো ঘটনা ঘটলে কঠোরভাবে প্রতিহত করা হবে। ওদের এলাকায় সন্দেহজনক গতিবিধিসহ সেনাদের উপস্থিতি আছে, সেটি জেনেছি।’

বাংলাদেশ-মিয়ানমার আন্তর্জাতিক সীমান্তে মিয়ানমারের সেনাদের গতিবিধি গত কয়েক দিনে বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে ঢাকায় মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে ডেকে উদ্বেগ জানিয়েছে বাংলাদেশ। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, গত শুক্রবার থেকে বাংলাদেশ-মিয়ানমার আন্তর্জাতিক সীমান্ত এলাকার কাছাকাছি মিয়ানমারের সৈন্যদের টহল স্বাভাবিকের চেয়ে বেড়েছে বলে দেখা গেছে। সীমান্ত এলাকার অন্তত তিনটি পয়েন্টে সৈন্যদের ‘ব্যাপক সংখ্যক’ উপস্থিতি দেখা গেছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

এসএম/দুর্বার২৪

আরও পড়ুন

আড়াই হাজার বছরের পুরনো কফিন মিললো মিশরে

মিসরে প্রাচীন এক গোরস্থানে আড়াই হাজার বছরেরও বেশি সময় আগে কবর দেওয়া ২৭টি কফিন উত্তোলন …